সঙ্কেত ডেস্ক: প্রাথমিকের নিয়োগ মামলায় বড় নির্দেশ কলকাতা হাইকোর্টের । ২০১৬ সালের প্রাথমিক নিয়োগ প্রক্রিয়া সংক্রান্ত মামলার বুধবার শুনানি ছিল হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের একক বেঞ্চে। সেখানে আজ বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায় নির্দেশ দিয়েছেন ২০১৬-র প্রাথমিক নিয়োগ প্রক্রিয়ায় ৪২ হাজার ৯৮৯ শিক্ষক নিয়োগের প্যানেল প্রকাশের । ১০ দিনের মধ্যে প্যানেল প্রকাশের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। প্যানেল প্রকাশ হয়ে থাকে তাহলে তার হার্ড কপি ও সফট কপি পেশের নির্দেশ দিয়েছেন। বিচারপতি এমনও প্রশ্ন করেন যদি এই প্যানেল প্রকাশিত হয়ে থাকে তাহলে তার ওপর ডিভিশন বেঞ্চ স্থগিতাদেশ দিল কীভাবে। একটি প্যানেল প্রকাশের পর কিভাবে স্থগিতাদেশ দেওয়া সম্ভব এনিয়েও প্রশ্ন করেছেন বিচারপতি। যে প্যানেল প্রকাশিত হয়নি সেই প্যানেলের ওপর স্থগিতাদেশ দেওয়া সম্ভব।

প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের বেঞ্চে জানিয়েছিল ধাপে ধাপে প্যানেল প্রকাশিত হয়েছিল। প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের বক্তব্য ও মামলার গতিপ্রকৃতি দেখে সেখানে অসঙ্গতির গন্ধ পাচ্ছেন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়। এই মামলার যে গতি প্রকৃতি হাইকোর্টে তার মধ্যে কোথাও অসঙ্গতির আভাস পাওয়া যাচ্ছে। সেজন্য তিনি প্যানেল চেয়ে পাঠিয়েছেন। এখন দেখার পর্ষদ উপযুক্ত নথি আদালতে পেশ করতে পারে কিনা।

উল্লেখ্য,প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালে যে টেট নেওয়া হয়েছিল, সেই পরীক্ষার ভিত্তিতে ২০১৬ সালে প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ হয়েছিল। ৪২ হাজারেরও বেশি শিক্ষক পদে নিয়োগ হয়েছিল ২০১৬ সালে। সেই নিয়োগ ঘিরে বিস্তর গরমিলের অভিযোগ উঠে এসেছিল। দীর্ঘদিন ধরে একাধিক ধরনা মঞ্চ গড়ে উঠেছিল। অতীতে এই ২০১৬ সালের প্রাথমিক নিয়োগ মামলায় একাধিক গুরুত্বপূর্ণ মন্তব্য করেছিলেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়।অতীতে পুরো প্যানেল বাতিল করে দেওয়ার হুঁশিয়ারিও দিয়েছিল আদালত। আর এবার ঘুরেফিরে আবার সেই চর্চায় ২০১৬ সালের প্রাথমিকের নিয়োগের প্যানেল।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *