নিজস্ব প্রতিনিধি: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কালীঘাটের বাড়িতে গিয়ে ওনাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানালো রাজ্য সভাপতি ডক্টর চন্দ্রচূড় গোস্বামীর নেতৃত্বে অখিলভারত হিন্দুমহাসভা । চন্দ্রচূড় গোস্বামীর বক্তব্য পশ্চিমবঙ্গে ওনারা বিরোধী রাজনৈতিক দল করলেও ওনারা বিশ্বাস করেন ব্যক্তিগত সুসম্পর্ক এবং রাজনৈতিক সৌজন্য সবার আগে থাকা উচিৎ । প্রসঙ্গত উল্লেখ্য আগামী লোকসভা নির্বাচন 2024 সে অখিলভারত হিন্দুমহাসভা দলগত ভাবে দীর্ঘ ৭৫ বছর পর লড়াই করতে চলেছে । পশ্চিমবঙ্গের ৪২ টি কেন্দ্রেই প্রার্থী দেবার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতের অন্যতম প্রাচীন এই রাজনৈতিক দল কারণ ওনাদের বক্তব্য ওনারই প্রকৃত সনাতনী জাতীয়তাবাদী রাজনৈতিক দল । তিনি আরো বলেন নির্বাচনে রাজনৈতিক দল গুলি পরস্পরের প্রতিদ্বন্দ্বী হলেও সবার মাথায় রাখা উচিত “মানুষের স্বার্থে উন্নয়ন থাকুক রাজনীতির উর্দ্ধে । দেশ ও দশের ভালো করার মূল মন্ত্র হোক রাজনৈতিক সৌজন্য ও পারস্পরিক শ্রদ্ধা এবং ভালোবাসা ।” অখিলভারত হিন্দুমহাসভার রাজ্য সভাপতি চন্দ্রচূড় গোস্বামী নবান্ন সভাঘরে পশ্চিমবঙ্গ দিবস নির্ধারণের সভায় মুখ্যমন্ত্রীকে মাতৃসমা বলে সম্বোধন করায় এবং মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রচূড় গোস্বামীর বক্তব্যের ভুয়সী প্রশংসা করার পর রাজনৈতিক মহলে অনেক জল ঘোলা হয়েছিল । সেদিন ব্যক্তিগত ভাবে আলোচনার সময় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় চন্দ্রচূড় গোস্বামীকে ডেকে বলেন উন্নয়ন হোক রাজনীতির ঊর্ধ্বে এবং অখিলভারত হিন্দুমহাসভা যেন যে কোনো ভালো কাজে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের পাশে থাকে । আজ অখিলভারত হিন্দুমহাসভার সদস্যরা মুখ্যমন্ত্রীর দীর্ঘায়ু, শারীরিক সুস্থতা এবং রাজনৈতিক সাফল্য কামনা করে জন্মদিনের উপহার হিসেবে কালীঘাটে পূজো দেওয়া মায়ের প্রসাদ ও ফুল, পুষ্পস্তবক এবং মুখ্যমন্ত্রীর প্রিয় নলেন গুড়ের রসগোল্লা উপহার দিলেন । রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বিতার ঊর্ধ্বে উঠে আজকের দিনটি সম্প্রীতি ও রাজনৈতিক সৌজন্যের ক্ষেত্রে যে এক অনিন্দ্যসুন্দর বার্তা প্রদান করলো সেই বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই ।*

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *