Sharing is caring!

রামকৃষ্ণ চ্যাটার্জী: আসানসোল:-রাজা রামমোহন রায় এর সার্ধদ্বিশত জন্মবর্ষ উদযাপন আসানসোল মহকুমা শাসকের দফতরে।মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাবনায় ও পশ্চিম বর্ধমান জেলার জেলা তথ্য সংস্কৃতি দপ্তরের উদ্যোগে রাজা রামমোহন রায় এর সার্ধদ্বিশত জন্মবর্ষ উদযাপন দিবস পালন করা হলো।

রবিবার দিন রাজা রামমোহন রায়ের ২৫০ তম জন্মদিবস যথাযোগ্য মর্যাদা সাথে পশ্চিম বর্ধমান জেলা জুড়ে মহাসমারোহে পালিত হল। জেলা পর্যায়ের অনুষ্ঠানটি আসানসোল মহকুমা শাসকের দফতরে আয়োজিত হয়। দুর্গাপুর মহকুমায় ও জেলার প্রতিটি ব্লকে অনুষ্ঠানটি আয়োজিত হয়। রবিবার সকালে প্রদীপ প্রজ্জ্বলনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের শুভ সূচনা হয়। এদিন প্রদীপ প্রজ্জলিত করে রামকৃষ্ণ মিশন বিদ্যালয়ের শিক্ষক দীপঙ্কর নাথ ও শ্রীমতি সুতপা নাথ সরকার সহ অন্যান্যরা। এরপর রামমোহন রায়ের জীবন দর্শন নিয়ে আলোচনা ও ব্রাহ্মসংগীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানগুলি আয়োজিত হয়। জেলার মূল অনুষ্ঠানে সহযোগিতা করেন সারদা সঙ্গীত বিদ্যাপীঠ।
এদিনের অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন রামকৃষ্ণ মিশন বিদ্যালয়ের শিক্ষক দীপঙ্কর নাথ ও শ্রীমতি সুতপা নাথ সরকার।শিক্ষক দীপঙ্কর নাথ বলেন মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী রাজা রামমোহন রায়ের জন্মদিন পালনের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানায়। যে খুব ভাল উদ্যোগ এই মনীষীর জন্মদিন পালন করলেন আর বিশেষ করে যে রাজা রামমোহন রায় যে সমস্ত প্রথা যেমন সতীদাহ প্রথা বন্ধ হয়ে গেছিল সেগুলো কিন্তু এখন আর আমাদের চোখে পড়ে না। সংস্কারক মনোভাব না আমরা বয়ে নিয়ে চলেছি। কবিতার ছন্দে যদি বলি, সেইরকমই ভাষার ফারাক থাকলেও আমরা ওনার সংস্কারকে বয়ে নিয়ে চলেছে।

জেলা তথ্য সংস্কৃতি দপ্তরের আধিকারিক আজিজুর রহমান বলেন তথ্য সংস্কৃতি দপ্তর এর উদ্যোগে রাজা রামমোহন রায়ের ২৫০তম জন্মদিন উপলক্ষে এই অনুষ্ঠান করা হয়েছে রাজা রামমোহন রায় একজন সংস্কৃত জগতের ব্যক্তি উনার কাজকর্মগুলো কে চারিদিকে সম্প্রসারণ করার জন্য এই অনুষ্ঠান।রামকৃষ্ণ মিশন বিদ্যালয়ের শিক্ষক দীপঙ্কর নাথ ছাড়াও এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সুতপা নাথ সরকার,সারদা সঙ্গীত বিদ্যাপীঠ, দেবী চন্দন চৌধুরী, সঞ্জয় বিশ্বাস ও বিশিষ্ট সাংবাদিকরা ও আসানসোল তথ্য ও সংস্কৃতি বিভাগের কর্মীবৃন্দ।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published.