নিজস্ব প্রতিনিধি: রানীগঞ্জের শিল্পপতির নাতিকে অপহরণের ষড়যন্ত্রের শিকার থেকে বাঁচাল স্থানীয় মানুষজন। জানা গিয়েছে স্কুলে যাওয়ার সময় শিল্পপতির নাতিকে অপহরণ করার চেষ্টা করে অপরাধীরা। যদিও স্থানীয় মানুষজন বিষয়টি লক্ষ্য করে এই অপহরণ রুখে দেয়। জানা গেছে আসানসোলের সেনভেন স্কুলের ৭ বছরের ওই পড়ুয়া, তাদের স্কুল মোড়ের বাড়ি থেকে নিজেদের গাড়িতে করেই স্কুলে যাচ্ছিল, সে সময়ই জামুড়িয়া থানার শ্রীপুর ফাঁড়ি এলাকার, বোগড়া মোড়ের কাছে তার গাড়িকে ঘিরে ধরে জনা সাতেক দুষ্কৃতি, বলে অভিযোগ।

আর এই ঘটনার বিষয় লক্ষ্য করে, স্থানীয়রা তাদের রুখে দিলে, দুষ্কৃতী দল এলাকা ছেড়ে চম্পট দেয়। মুহূর্তে ঘটা এই ঘটনা কে ঘিরে হতচকিত সকলে। কি কারনে, কি উদ্দেশ্যে, এই অপহরণের ঘটনা তা নিয়ে চলছে জোর জল্পনা। এদিকে এই সমস্ত ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। জানা গেছে ওই শিশু রানীগঞ্জের শিল্পপতি রামকুমার সাঁদরার নাতি, রেহান, অন্যদিনের মতোই এদিনও নিজের গাড়িতে করেই স্কুলে যাচ্ছিল সে সময় ঘটে ঘটনা। পরে যদিও স্থানীয়দের হস্তক্ষেপেই দুষ্কৃত দল চম্পট দিলে ওই পড়ুয়াকে আবার স্কুলে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। বেশ কিছুজনের দাবি অপহরণকারীরা রানিগঞ্জের মোড় থেকে তাদের ধাওয়া করছিল তবে কি কারনে ও কি উদ্দেশ্যে এ ধরনের ঘটনা তারা ঘটাতে চাইছিল তা নিয়েও উঠেছে প্রশ্ন?

উল্লেখ্য ওই ব্যবসায়ীর রানীগঞ্জের মঙ্গলপুর শিল্প তালুকে ব্যবসা চলার সাথেই ভারতের বিভিন্ন প্রান্তে তার শিল্প কলকারখানা রয়েছে সে কারণেই এই অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায়ের বিষয় কিনা? তা নিয়েও সন্ধিহান সকলে। এদিকে এই ঘটনার পরপরই ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায় ওই ব্যবসায়ীর বাড়িতে তার আত্মীয়-স্বজন ও রানীগঞ্জের ব্যবসায়ী মহল এসে ঘটনা সম্পর্কে জানতে হাজির হয় । এই মুহূর্তে পুলিশ প্রশাসন এই ঘটনার খবর পেয়ে দ্রুত সমস্ত থানার এলাকাগুলিতে নাকা চেকিং শুরু করেছে। চলছে দিকে দিকে খানা তল্লাশি। সমস্ত এলাকায় নেমেছে পুলিশের বিশেষ নজরদারি দল।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *