সঙ্কেত ডেস্ক: ছাত্রছাত্রীদের নিয়ে শিক্ষামূলক ভ্রমণে গিয়েছিলেন প্রধান শিক্ষিকা। সেখানেই প্রধান শিক্ষিকার সঙ্গে ঘনিষ্ঠ অবস্থায় দেখা যায় এক ছাত্রকে। অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষিকার নাম পুস্পলতা এ।ঘটনার জেরে কর্নাটকের চিক্কাবল্লাপুর জেলার চিন্তামণি মহকুমার মুরুগামল্লা গ্রামের সরকারি হাই স্কুলের ওই প্রধান শিক্ষিকাকে স্কুল কর্তৃপক্ষের রোষের মুখেও পড়তে হয়েছে। প্রধান শিক্ষিকার বিরুদ্ধে তদন্ত করে অবিলম্বে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন অভিভাবকরা।

জানা গেছে সম্প্রতি মুরুগামল্লা গ্রামের সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের এক শিক্ষামূলক ভ্রমণে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। ভ্রমণের সময় এক নাবালক ছাত্রের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ হন ওই শিক্ষিকা। নিজেদের অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ছবিও ক্যামেরাবন্দি করেছিলেন তিনি। প্রতিটি ছবিতেই দু’জনকে ঘনিষ্ঠ অবস্থায় দেখা গিয়েছে।ছবিতে বকখনো প্রধান শিক্ষিকাকে কোলে তুলে নিচ্ছেন ওই নাবালক ছাত্র। আবার ছাত্রকে জড়িয়ে ধরে চুমু খাচ্ছেন প্রধান শিক্ষিকা। কখনও আবার দেখা গেল প্রধান শিক্ষিকার শাড়ি ধরে টানছেন ছাত্র।ছবিগুলি দেখে অনেকেরই মনে হয়েছে, দু’জনের সম্মতিতেই ছবিগুলির মুহূর্ত তৈরি হয়েছে। সেই ছবি সমাজমাধ্যমে ছড়িয়ে যেতে বেশি সময় নেয়নি। আর তারপরই তোলপাড় চারদিক। মন্তব্যের বন্যা। সবার আক্রমণের তির প্রধান শিক্ষিকার দিকে।
এই দৃশ্য দেখে শিক্ষিকার বিরুদ্ধে অভিযোগ জানান ওই ছাত্রের বাবা-মা। বিডিওর কাছে শিক্ষিকার বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক পদক্ষেপের দাবি জানান। অভিযোগ জানান স্কুল কর্তৃপক্ষের কাছেও। শুক্রবার এ বিষয়ে স্কুল কর্তৃপক্ষ ওই শিক্ষিকাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে, শিক্ষিকা জানান, তাঁর এবং তাঁর ছাত্রের মধ্যে শুধুই মা-ছেলের মতো সম্পর্ক। বিষয়টিকে অকারণে ভুল ভাবে দেখানো হচ্ছে।
শিক্ষিকা এবং ছাত্রের ছবিকে কেন্দ্র করে সমাজমাধ্যমে শুরু হয়েছে চর্চা। বিতর্কের মুখে পড়ে শিক্ষিকাকে সাসপেন্ড করেন স্কুল কর্তৃপক্ষ।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *