সঙ্কেত ডেস্ক: আবারও তুমুল উত্তেজনা সন্দেশখালিতে। ফের একবার শাহজাহান ঘনিষ্ঠ তৃণমূল নেতার পোল্ট্রি ফার্ম-বাড়িতে আগুন-ভাঙচুর কয়েকশো জনতার। শাহজাহান ও তার অনুগামী উত্তম সরদার, শিবু হাজরার গ্রেফতারির দাবিতে বৃহস্পতিবারে পর শুক্রবারেও লাঠি, ঝাঁটা, বাঁশ, কাঠারি হাতে পথে নেমে বিক্ষোভে সোচ্চার হাজার-হাজার মহিলা। পরিস্থিতি সামাল দিতে বিশাল পুলিশবাহিনী মোতায়েন সন্দেশখালিতে।শুক্রবার সন্দেশখালির জেলিয়াখালিতে তৃণমূল নেতা শিবপ্রসাদ হাজরার আরও একটি পোল্ট্রি ফার্মে আগুন ধরিয়ে দেয় কয়েকশো জনতা। এরই কিছুক্ষণের মধ্যে মহিলাদের আরও একটি দল চড়াও হয় শিবু হাজরার বাড়িতে। সেখানেও বেপরোয়াভাবে ভাঙচুর চালানো হয়।জনতার অভিযোগ, গায়ের জোরে দখল করা জমিতেই পোল্ট্রি ফার্ম বানিয়েছেন তৃণমূল নেতা শিবপ্রসাদ হাজরা। শেখ শাহজাহানের ঘনিষ্ঠ দোর্দণ্ডপ্রতাপ এই তৃণমূল নেতা এলাকায় ভয় দেখিয়ে-আতঙ্ক তৈরি করে স্থানীয়দের ন্যায্য পারিশ্রমিক না দিয়ে দিনের পর দিন এলাকার অনেককে ফার্মে কার্যত ভয় দেখিয়ে কাজ করানো হয়েছে বলে অভিযোগ তাঁদের।
মহিলারা জানান, তাঁদের স্বামীদের জোর করে কাজ করতে বাধ্য করা হয়। কাজ করার পর মেলে না প্রাপ্য পারিশ্রমিক। টাকা চাইতে গেলে মারধর করা হয় বলেও অভিযোগ শিবুদের বিরুদ্ধে। শিবুর গুন্ডাবাহিনীর মারে গ্রামের বেশ কয়েকজন পুরুষ চলাফেরার শক্তি পর্যন্ত হারিয়ে ফেলেছেন।
পরিস্থিতি সামাল দিতে সন্দেশখালিতে বিপুল সংখ্যায় পুলিশ-RAF-এর কর্মীদের মোতায়েন করা হয় ,উত্তেজিত গ্রামবাসীদের বুঝিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করে পুলিশকর্তারা।
শুক্রবার বিকেলে সাংবাদিক বৈঠক করে রাজ্য পুলিশের এডিজি মনোজ বর্মা জানালেন সন্দেশখালির পরিস্থিতি সম্পূর্ণ স্বাভাবিক। তিনি বলেন, ‘আজ সকালের দিকে একটি ঘটনাকে কেন্দ্রে করে পরিস্থিতি ,উত্তপ্ত হয়। সঙ্গে সঙ্গে ঘটলাস্থলে পুলিশ বাহিনী গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এখন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। ইতিমধ্যেই ৮ জনকে আটক করেছে পুলিশ।” এদিকে শুক্রবারের মতো বিক্ষোভ তুলে নেন গ্রামবাসীরা। শনিবার তাঁরা ফের বিক্ষোভে বসবেন বলেও হুঁশিয়ারি দিয়েছেন।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *