সঙ্কেত ডেস্ক: শেখ শাহজাহানকে গ্রেফতারে কোনও স্থগিতাদেশ নেই। সোমবার স্পষ্ট করে জানিয়ে দিলেন কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি শেখ শাহজাহান। সন্দেশখালি মামলায় শেখ শাহজাহানকে পার্টি করার নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট। শেখ শাহজাহনকে চাইলে পুলিশ গ্রেফতার করতেই পারে, স্পষ্ট করে জানালেন প্রধান বিচারপতি টিএস শিবজ্ঞানম। সুতরাং, সন্দেশখালির একদা বেতাজ বাদশাকে গ্রেফতারে যে আইনি বাধার কথা বিভিন্ন মহল থকে বলা হচ্ছিল তা কার্যত নস্যাৎ করে দিল খোদ উচ্চ আদালতই।শেখ শাহজাহানকে গ্রেফতারে কোনও স্থগিতাদেশ নেই।প্রধান বিচারপতির এই নির্দেশের পরই শাহজাহানের বিরুদ্ধে একের পর এক এফআইআর করছে পুলিশ।

গতকালই সর্বভারতীয় তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন, আদালতের স্থগিতাদেশের জন্যই শেখ শাহজাহানকে গ্রেফতার করা যাচ্ছে না। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সেই মন্তব্যের পরের দিনেই উচ্চ আদালত এব্যাপারে নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট করল।সোমবার অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্তব্যের প্রেক্ষিতে কলকাতা হাইকোর্ট শাহজাহানের গ্রেফতারির ওপর কোনও স্থগিতাদেশ জারি করেছে কি না তা জানতে চান আইনজীবীরা। আবেদনের প্রেক্ষিতে প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ স্পষ্ট জানিয়ে দেয়, শেখ শহজাহানের গ্রেফতারির ওপর কোনও স্থগিতাদেশ নেই। শুধুমাত্র সিটের তদন্তপ্রক্রিয়ায় স্থগিতাদেশ দিয়েছে আদালত।

সন্দেশখালি থানা সূত্রে জানা গিয়েছে, গৌর দাস নামে এক ব্যক্তি তৃণমূলি গুন্ডা শেখ শাহজাহানের বিরুদ্ধে গত ১৯ ফেব্রুয়ারি অভিযোগ দায়ের করেছিলেন। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে শাহজাহানের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেছে পুলিশ।এছাড়া গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ভাঙচুরের অভিযোগ জমা পড়ে শহজাহানের বিরুদ্ধে। এছাড়া জমি দখলের একাধিক অভিযোগ জমা পড়েছে শাহজাহানের বিরুদ্ধে।

এরই মধ্যে কলকাতা হাই কোর্টের নির্দেশের পর কুণাল ঘোষ নিজের এক্স হ্যান্ডেলে লেখেন, ” শেখ শাজাহান গ্রেপ্তার নিয়ে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় সঠিক বলেছিলেন। আদালতের আইনি জটেই বিষয়টা আটকে ছিল। তার সুযোগে রাজনীতি করছিল বিরোধীরা। আজ হাইকোর্ট সেই জট খুলে পুলিশকে পদক্ষেপে অনুমোদন দেওয়ায় ধন্যবাদ। সাত দিনের মধ্যে শাজাহান গ্রেপ্তার হবে।”যদিও কুণাল ঘোষের ওই টুইটের পর কটাক্ষ করেছে বাম ও কংগ্রেস। তাদের দাবি, শাসক দলের আশ্রয়ের ছিল সন্দেশখালি কাণ্ডের মূল অভিযুক্ত শেখ শাহাজাহান।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *