সঙ্কেত ডেস্ক: রাজ্যের ১০০ দিনের কাজের দুর্নীতির তদন্তে এবার নামল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্হা ইডি। মঙ্গলবার একযোগে অভিযান চলল সল্টলেক, ঝাড়গ্রাম, হুগলির চূচূড়া এবং মুশিদাবাদে। এখনও পর্যন্ত জানা গিয়েছে, ঝাড়গ্রামের এক সরকারি আধিকারিকের কোয়ার্টারে, হুগলির চুঁচুড়ায় এক ব্যবসায়ীর বাড়িতে এবং মুর্শিদাবাদের একটি জায়গায় তল্লাশি চলছে।

এদিন সকালে ঝাড়গ্রামের একটি সরকারি আবাসনে হানা দেন ইডি আধিকারিকরা। পরে জানা যায়, জেলার সংখ্যালঘু দপ্তরের এক প্রশাসনিক আধিকারিককে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে ইডি। ঝাড়গ্রাম শহরের বাছুরডোবা এলাকায় রয়েছে ওই আবাসন। পাশাপাশি, তল্লাশি চলছে মুর্শিদাবাদ জেলার বহরমপুরে এক বহিষ্কৃত পঞ্চায়েত সদস্য রথীন দে-র বাড়িতে। তল্লাশি চলছে চুঁচুড়ার ময়নাডাঙায় এক ব্যবসায়ীর বাড়িতেও। সল্টলেকের যে আবাসনে তল্লাশি চলছে, সেটিতে ধনেখালির প্রাক্তন বিডিও থাকেন বলে ইডি সূত্রে খবর।
মুর্শিদাবাদের বেলডাঙা এবং হুগলির ধনেখালিতে ১০০ দিনের কাজের দুর্নীতি নিয়ে অভিযোগ জমা পড়েছিল বলে দাবি ইডির। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে এদিন চার জেলায় তল্লাশি অভিযান। ইডি সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই অভিযোগে দাবি করা হয় রাজ্যে ১০০ দিনের জন্য বরাদ্দ টাকার নয়ছয় করা হয়েছে। এই একই অভিযোগ করা হয়েছিল ধনেখালি এবং বেলডাঙা থেকে।সেই সঙ্গে ইডি সূত্রে খবর, রাজ্যে ১০০ দিনের কাজে জাতিগত শংসাপত্র নিয়ে ‘দুর্নীতি’র বিষয়ে তদন্ত শুরু হয়েছে। জানা গিয়েছে, আগেই এই দুর্নীতির বিষয়ে হুগলির ধনেখালি এবং মুর্শিদাবাদের বেলডাঙা থানায় অভিযোগ দায়ের হয়েছিল। তার ভিত্তিতেই তদন্ত শুরু হয়েছে।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *